Goodman Travels

বিয়ে করতে আসা বরের কারাদণ্ড, কাজির জরিমানা

পাবনার ভাঁড়ারায় খয়েরবাগানে ইউএনওর হস্তক্ষেপে সপ্তম শ্রেণি পড়ুয়া এক স্কুল ছাত্রীর বাল্যবিবাহ পণ্ড করে দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন।

এ সময় বাল্যবিবাহের অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় বরসহ পাঁচজনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড এবং কাজীকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

 

পাবনা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জয়নাল আবেদীন জানান, ভাঁড়ারা ইউনিয়নের খয়ের বাগানে বীনা (১৪) নামের সপ্তম শ্রেণীতে পড়ুয়া এক স্কুলছাত্রীর বাল্যবিবাহ দেয়া হচ্ছে, স্থানীয় সূত্রে পাওয়া এমন খবরে শুক্রবার সেখানে অভিযান পরিচালনা করে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

ঘটনাস্থলে গিয়ে সত্যতা মেলায়, তৎক্ষণাৎ বিয়ে বন্ধ করে দেওয়া হয়।

অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় এ সময় বিয়ের বর ভাঁড়ারা ইউপির নলদহ গ্রামের হেলাল উদ্দিনের ছেলে মোঃ নাইমকে এক বছর, বরের সহযোগী একই গ্রামের রোস্তম আলীর ছেলে হামিদুল,বরের বাবা মৃত ছকির উদ্দিনের ছেলে হেলাল, শাহজাহান প্রামাণিকের ছেলে শাহাবুদ্দিন এবং বগুড়া জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার নুরুল ইসলামের ছেলে শিহাব উদ্দিনকে ছয়মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়।

অপ্রাপ্ত বয়স্কদের বিয়ে পড়ানোয় কাজী আওকাত হোসেনকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

ইউএনও আরও জানান, ভ্রাম্যমাণ আদালত চলাকালে মেয়ের বাবা তার দারিদ্রতার বিষয়টি তুলে ধরে মেয়ের পড়াশোনা চালাতে অপারগতার কথা তুলে ধরে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। সহযোগিতা পেলে মেয়ের লেখাপড়া চালাবেন অঙ্গীকার করলে উপজেলা প্রশাসন থেকে ওই স্কুলছাত্রীর লেখাপড়ার দায়িত্ব নেওয়া হয়৷ এছাড়া দরিদ্র পরিবারটির জন্য প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এ একটি ঘর বন্দোবস্ত দেওয়ারও প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে।