Goodman Travels

বড়ালব্রিজ স্টেশনে বেড়েছে পকেটমাদের দৌরাত্ব

বার্তা সংস্থা পিপ : পাবনার ভাঙ্গুড়ায় ঐতিহ্যবাহী বড়ালব্রিজ রেল স্টেশনে ছিচকে পকেটমারদের দৌরাত্ব যেন দিন দিন বেড়েই চলেছে। এমন অভিযোগ করেছেন একাধিক রেল যাত্রী । এতে এখানকার রেল যাত্রীরা নার্ভিশ্বাস হয়ে উঠলেও তার কোনো প্রতিকার পাচ্ছে না । তবুও উর্ধতন কর্তৃপক্ষের নিকট তারা এর প্রতিকার দাবী করেন।

বড়ালব্রিজ রেল স্টেশন রেল যাত্রীদের জন্য একটি প্রসিদ্ধ স্থানের নাম। ভৌগেলিক অবস্থানগত দিক থেকে এ উপজেলার মানুষের নিকট গুরুত্বপূর্ণ স্থান। বড়াল ব্রিজ টু ঢাকা , বড়াল ব্রিজ টু রাজশাহী কিংবা বড়াল ব্রিজ টু দেশের উত্তর বঙ্গ ও দক্ষিণ বঙ্গের সাথে যাতায়াতের জন্য এই স্টেশনটি গুরুত্বপূর্ণ ভুমকিা পালন করে আসছে। বিশেষ করে এ এলাকার যারা বাসে ভ্রমণ করা আনন্দ বোধ করেন না তাদের সকলেই রেলপথ ব্যবহার করতে বড়াল বিজ্র স্টেশনে আসতে হয়। আর এটি একদিকে যেমন খরচ কম অন্যদিকে তেমনি আরামদায়ক ভ্রমণও বটে। আর সেটি বিবেচনায় নিয়ে এউপজেলার বাসিন্দা ও পার্শ্ববর্তী ফরিদ পুর উপজেলা সহ এর আশপাশের জনসাধারণ রেল পথ ব্যবহারের জন্য এই স্টেশনটি অহরহ ব্যবহার করে থাকে।
এখানে বেশ কয়েকটি আন্ত:নগর ট্রেন যেমন সিল্কসিটি,ধুমকেতু,চিত্রা ও লালমনি হাট এক্সপ্রেস সহ আর লোকাল ট্রেনের ও যাত্রাবিরতি রয়েছে। ফলে ট্রেন গুলি যখন এ স্টেশনে এসে থামে তখন যাত্রী সাধারণ অতিদ্রুত ট্রেনে ওঠতে চেষ্টা করেন। তখনি যাত্রী বেশে আশ পাশে অবস্থান নিয়ে ভীড় করে পকেটমারে পকেটমারেরা। কারো মোবাইল, কারো বা নগদ টাকা বা মানিব্যাগ কৌশলে চুরি করে নিচ্ছে। এ যেন একটি নিত্য নৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দড়িয়েছে।

এ বিষয়ে অষ্টমনিষা ইউনিয়নের রুপসী গ্রামের ঢাকাগামী ট্রেন যাত্রী সৌরভ বার্তা সংস্থা পিপ‘কে বলেন, বড়াল ব্রিজ স্টেশনে চোরের আনাগোনা বেড়েছে ,ট্রেনে ওঠার সময় আমার একটি দামী স্মার্টফোন চুরি হয়েছে। স্টেশনে এই চোরদের দৌরাত্ব বন্ধে উর্ধতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আর্কষণও করেন তিনি। বড়াল ব্রিজ স্টেশনের বুকিং সহকারি মামুন বার্তা সংস্থা পিপ‘কে বলেন, এ স্টেশনে কয়েকজন আনছার আছেন যারা ঈদ উপলক্ষে যাত্রীদের নিরাপত্তার বিষয়ে কাজ করে থাকেন।