Goodman Travels

পাবনায় ক্ষুদে গণিতবিদের সন্ধান

বার্তা সংস্থা পিপ: পাবনার প্রত্যান্ত এক গ্রামে মাত্র ৬ বছর বয়সী ক্ষুদে গণিতবিদের সন্ধান পাওয়া গেছে। যোগ, বিয়োগ, গুন ও ভাগসহ যে কোন ধরনের অংক সঠিকভাবে ক্যালকুলেটর বা খাতা-কলম ছাড়াই মুখে মুখে ফলাফল বা উত্তর বলে দিতে পাদর্শী ছোট্র শিশুটি কারো বয়সের সন, মাস তারিখ বলে দিলেই সে তার বয়স কত বছর, কত মাস, কত দিন মহুর্তের মধ্যে বলে দিচ্ছে। বিস্ময়কর শিশুটি গণিতের পাশাপাশি ভুগোলেও পাদর্শী। যে কোন দেশের নাম বললে সেই দেশেরে রাজধানী, রাজধানীর নাম বললে দেশের নাম এবং সেই দেশের জনসংখ্যা ও আয়তন কত তা মহুর্তের মধ্যে বলে দিচ্ছে। বিস্ময় শিশু মোঃ জারিফ ইকবাল ওয়ালীদ জেলার ফরিদপুর উপজেলার সোনাহারা গ্রামের মোঃ জাফর ইকবাল মন্টুর ছেলে। সে বনওয়ারী নগর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণীর ছাত্র। প্রতিভাবান শিশুটিকে একনজর দেখতে ও তার সাথে কথা বলতে তার বাড়ি এবং স্কুলে শতশত মানুষ ভির করছে।

শিশু জারিফ ইকবাল ওয়ালীদের বাবা মোঃ জাফর ইকবাল মন্টু জানান, তার দুই ছেলে সন্তানের মধ্যে ছোট ছেলে ওয়ালীদের মেধা সৃষ্টিকর্তার বিশেষ দান, মাত্র ৬ বছরের ছেলেটির গণিতের উপর এত দক্ষতা আমরা কল্পনাও করতে পারি নাই, আমি সৃষ্টিকর্তার নিকট চিরকৃতজ্ঞ। এলাকার মানুষ এখন ছেলেটাকে ক্ষুদে গণিতবিদ বলে ডাকে। কেউ কেউ বিস্ময় শিশু বলে।

বনওয়ারী নগর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এসএম আব্দুর রব ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বার্তা সংস্থা পিপ‘কে বলেন, শিশু ওয়ালীদের গণিতে পার্দশী আমাদের অবাক করেছে। সে এবছরই আমাদের স্কুলে প্রথম শ্রেণীতে ভর্তি হয়েছে, মেধাবী ছাত্র ওয়ালীদের লেখা-পড়াসহ সার্বিক বিষয় আমরা খোঁজ খবর রাখছি।

ফরিদপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল সালেক বলেন, বিষয়টি জানানর পর আমার অফিসে শিশুটিকে ডেকে এনে যাচাই বাচাই করে ঘটনার সত্যতা পেযেছি। ওকে এখন এলাকার সবাই ক্ষুদে গণিতবিদ বলে। ওর মেধার ধারাবাহিকতা রক্ষায় যা যা প্রয়োজন করা হবে, ওর স্কুলের শিক্ষকদের প্রতি এব্যাপারে দিক নির্দেশনা দেয়া আছে। তিনি মেধাবি শিশু ছাত্র ওয়ালীদের সার্বিক মঙ্গল কামনা করেন।