Goodman Travels

জিরাপানির যত উপকারিতা

ভাদ্র মাসের তালপাকা গরমে বাইরে বের হওয়াই দায়। এমন দিনগুলোতে খুব সহজেই ক্লান্ত হয়ে যাওয়াটা স্বাভাবিক। শরীরের স্বাভাবিক আর্দ্রতা বজায় রাখতে এ সময় প্রচুর পানি পান করা উচিত। তবে এ সময় যে পরিমাণ ঘাম বের হয়ে যায় শরীর থেকে তার জন্য শুধু পানি পানই যথেষ্ট নয়। স্বাস্থ্যকর আরও অনেক পানীয় আছে যা শরীরকে সতেজ রাখতে বেশ উপকারী। এরকম একটি পানীয় হচ্ছে জলজিরা বা জিরাপানি। ভারতীয় উপমহাদেশে জনপ্রিয় একটি পানীয় হিসেবে জিরাপানি পান করা হয়। চলুন জেনে নেওয়া যাক জিরাপানি কিভাবে তৈরি করবেন এবং এই পানীয়ের উপকারিতাই বা কী?


ওজন কমায় :

জিরাপানির একটি গুণ হচ্ছে এটি একটি শক্তিশালী ডিটক্স ড্রিঙ্ক। এর বিশেষ একটি গুণ হচ্ছে এটি ওজন কমাতে সাহায্য করে। শরীরের মধ্যে থাকা নানা ক্ষতিকর উপাদান যা শরীরে অতিরিক্ত ওজন ধরে রাখে তা দূর করে দেয় এই জিরাপানি।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় :

মানব দেহের জন্য একটি উপকারী উপাদান আয়রন। আর এই আয়রনের একটি বড় উৎস হলো জিরা। আয়রনের বড় একটি গুণ হলো এটি মানব দেহে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে বাড়িয়ে তোলে খুব দ্রুত। জিরায় রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য শুধু আয়রনই ভূমিকা পালন করে না। এর সাথে ভিটামিন এ এবং ভিটামিন সি দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করে।

রক্তশূন্যতায় উপকার :

জিরাতে যে আয়রন থাকে তা রক্তের হিমোগ্লোবিনের পরিমাণকে বাড়িয়ে দেয়। হিমোগ্লোবিন রক্তের মধ্যে অক্সিজেন সরবরাহ করে। রক্তকে পরিষ্কার করতে জিরাপানি বেশ ভাল ভূমিকা পালন করে। প্রতিদিন নিয়ম করে জিরাপানি পান করলে রক্ত স্বল্পতার হাত থেকে বেঁচে থাকা যায়।

অ্যান্টি অক্সিডেন্ট বাড়াতে :

নিয়মিত জিরা পানি পানে দেহ পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন এ, সি ও ই পায় যেগুলো অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ও এন্টিএজিং গুণাগুণের জন্য পরিচিত। এটা পান করার ফলে ত্বক পরিপূর্ণ হয় এবং অকাল বুড়িয়ে যাওয়া প্রতিরোধ করে।

যেভাবে বানাবেন :

জিরাপানি বানানো খুবই সহজ। আজকাল বাজারেও কিনতে পাওয়া যায় জিরাপানি। তবে ঘরে নিজেই তৈরি করে নিতে পারেন এই শরীরের জন্য উপকারি পানীয়টি।

১ লিটার বিশুদ্ধ পানি নিন। জিরার গুঁড়া নিতে হবে দেড় চা চামচ।

এবার পানি গরম করতে হবে। পানি গরম হয়ে এলে তাতে জিরার গুঁড়া ঢেলে দিন। এভাবে আরও ৮-১০ মিনিট ফুটিয়ে নিন। পানি ঠিকমতো ফুটলে নামিয়ে ছেঁকে নিন। এবার ঠাণ্ডা করে নিন। চাইলে কুসুম গরম কিংবা বরফ শীতল করেও পান করতে পারেন এই পানি। আরও সুস্বাদু করতে চাইলে লেবুর রস, পুদিনা পাতা, কিংবা গোল মরিচের গুঁড়াও যোগ করতে পারেন এর সাথে।