Goodman Travels

পাবনায় দরিদ্র ঘরের ১৫১ জন পেলেন পুলিশে চাকরি

পাবনায় কোনো ঘুষ ছাড়া পুলিশে চাকরি পেয়েছেন ১৫১ জন। তারা এরই মধ্যে চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। এজন্য প্রার্থীদের শুধু সরকারি ফরম কেনার জন্য ১০৩ টাকা খরচ করতে হয়েছে।

বিনা ঘুষ তদ্বিরে চাকরি পেয়ে অধিকাংশ প্রার্থীই আনন্দে বিহ্বল। চাকরিপ্রাপ্তদের মধ্যে মুক্তিযোদ্ধা পোষ্য, রিকশাচালক, নাইডগার্ড, দিনমজুরের সন্তানরাও রয়েছেন।

পাবনা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের হেড এসিস্ট্যান্ট শাহেদ হোসেন জানান, পাবনা জেলার অনুকুলে ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল (টিআরসি) পদে প্রাথমিক বাচাই শেষে ১০৭৭ জন লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৩৮৩ জন মেধা তালিকায় উত্তীর্ণ হন। সোমবার মৌখিক (ভাইবা) পরীক্ষা শেষে মেধা তালিকা হতে ১৫১ জনকে চূড়ান্তভাবে মনোনীত করা হয়।

পাবনা জেলায় ১৫১ জনকে মেধার ভিত্তিতে মনোনীত করা হয়েছে। এরমধ্যে ১২৪ জন পুরুষ ও ২৭ জন নারী। মুক্তিযোদ্ধা সন্তান ও তাদের নাতীদের ৪০ জনের মধ্যে ৩৮ জন জন এবং মুক্তিযোদ্ধা নাতনী আবেদনকারী ৪ জনই চূড়ান্তভাবে মনোনীত হন।

নারী সাধারণ কোটার মধ্যে মূলাডুলির বাসিন্দা দিন মজুর আবদুর রহিমের মেয়ে রুমা আক্তার, পাবনা সদর থানাধীন শিবরামপুরের বাসিন্দা পাবনা শহরের দীনা পার্লারের গার্ড জালাল উদ্দিনের মেয়ে আজমী খাতুন, লস্করপুরের বাসিন্দা অটোবাইক চালক আয়নাল হকের মেয়ে মিতু পারভীন, ভাঙ্গুড়া থানা এলাকার বাসিন্দা অটোবাইক চালক আবু বক্কর সিদ্দিকের মেয়ে শান্তা আক্তার মেঘলা, সিএনজি অটোরিকশাচালক রফিকুল ইসলামের মেয়ে রোকেয়া পারভীন এবং আতাইকুলা থানাধীন বাবা হারা এতিম (টিওশানি করে জীবিকা নির্বাহ করে) সুমাইয়া আক্তারসহ হতদরিদ্র পরিবারের ২১ জন মেয়ে চূড়ান্তভাবে মনোনীত হয়েছে।

পুলিশ সুপার শেখ রফিকুল ইসলাম বিপিএম পিপিএম মঙ্গলবার বিকেলে জানান, চূড়ান্তভাবে মনোনীত সবাই দরিদ্র ও দিনমজুর পরিবারের সন্তান।