Goodman Travels

এখন পর্যন্ত নৌকায় ভোট দিয়ে কেউ বঞ্চিত হয়নি : প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিনিধি: নৌকামার্কায় ভোট দিয়ে আবার সরকার গঠনের জন্য ভোটারদের সহযোগিতা কামনা করে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, নৌকায় ভোট দিলে দেশে শান্তি আসবে এবং জনগণ উপকৃত হবে। এখন পর্যন্ত নৌকায় ভোট দিয়ে কেউ বঞ্চিত হয়নি। জনগণ যখনই নৌকায় ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় এনেছে তখনই জনগণ কিছু পেয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে ধানমন্ডির সুধাসদন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে টাঙ্গাইল, কুমিল্লা, যশোর ও পাবনার জনসভায় বক্তব্য দেয়ার সময় তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় দলীয় ও মহাজোট প্রার্থীদের পরিচয় করিয়ে দেন প্রধানমন্ত্রী। একই সঙ্গে প্রার্থীদেরকে নৌকা প্রতীকে ভোট দেয়ার জন্য স্থানীয় জনগণের প্রতি আহ্বান জানান।

পাবনা এডওয়ার্ড কলেজ মাঠের ভিডিও কনফারেন্সের জনসভায় উপস্থিত ছিলেন পাবনা-৫ আসনের নৌকার প্রার্থী জননেতা গোলাম ফারুক প্রিন্স, পাবনা-১ আসনের শামসুল হক টুকু, পাবনা-২ আসনের আহমেদ ফিরোজ কবির, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল রহিম লাল প্রমূখ।

আরোও উপস্থিত ছিলেন পাবনার ৫টি আসনের আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মী

শেখ হাসিনা বলেন, খালেদা জিয়ার ছেলে বিদেশে অর্থ পাচার করেছে। পাচার করা অর্থ বিদেশ থেকে আমরা উদ্ধার করেছি। এ ছাড়া অর্থ লোপাট করে সন্ত্রাসী এবং জঙ্গিদের মদদ দেয় বিএনপি। আন্তর্জাতিক আদালতেও তারা দোষী। এরা সন্ত্রাসের সঙ্গে জড়িত, দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত। এরা যেন আর কখনওই ক্ষমতায় আসতে না পারে। এ জন্য জনগণকে সজাগ থাকতে হবে।

তিনি বলেন, ধানের শীষে ভোট চাচ্ছে সন্ত্রাসী, খুনি ও জঙ্গিবাদ বিএনপি। ওদের ভোট দেয়া যাবে না, ক্ষমতায় আনা যাবে না। তাহলে ওরা বাংলাদেশকে ধ্বংস করে দেবে। নৌকা মার্কা একমাত্র উন্নয়ন দেবে, শান্তি দেবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপি ঐক্যফ্রন্টের সন্ত্রাসীরা বিভিন্ন জায়গায় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করে তাদের হত্যা করছে এবং নির্বাচনী অফিস পুড়িয়ে দিয়েছে। এদের হামলায় ১৪১ জন আহত হয়েছেন। ১৭০টি নির্বাচনী অফিস ভাঙচুর করেছে, অনেকের বাড়িঘরেও তারা আগুন দিয়েছে। আগামীতে নৌকায় ভোট দিলে আমরা উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখব।